দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত ছাত্রলীগ নেতা রকি

নিউজ ডেস্কনিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৩০ PM, ১২ জুলাই ২০২১

রবিবার রাত ১০টার দিকে গাইবান্ধা শহরের পূর্বপাড়ার বালাসী সড়কে হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরি মোড়ে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হন ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি। এ ঘটনায় আজ দুপুরে নিহতের বড় ভাই আতিকুর রহমান বাদী হয়ে কাঞ্চন, ইমরানসহ চার জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় একটি মামলা করেন। দীর্ঘ সময়ে আসামীরা গ্রেফতার না হওয়ায় বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছেন এলাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীরা। এদিকে আসামীদের ধরতে জোড় তৎপরতার কথা জানালেন জেলা পুলিশ সুপার।
রবিবার রাত দশটার দিকে শহরের পুরাতন বাজার এলাকার ঔষধের দোকান থেকে ঔষধ নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে নিজ বাড়ি ফুলছড়ির কঞ্চিবাড়ির দিকে যাচ্ছিলো ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রকি। পথিমধ্যে শহরের পূর্ব পাড়ার হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরি মোড়ে পৌঁছলে আগে থেকেই ওঁত পেতে থাকা কাঞ্চন ও তার সহযোগীরা রকির উপর অতর্কিত হামলা করে এবং ধারালো ছুরি দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় রকির চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসার আগেই দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত রকিকে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ও একই উপজেলার মধ্য কঞ্চিপাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি মেম্বার মৃত ছইদার রহমান এর ছেলে।
পূর্ব পাড়া এলাকা দাদন ও মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত কাঞ্চন তার সহযোগীদের নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে ওই এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। গত কয়েকমাস আগে ওই এলাকার তুষার নামে এক যুবককে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে পঙ্গু করে কাঞ্চন বাহিনী। কিন্তু এ ঘটনার বিচার না হওয়ায় ছাত্রলীগ নেতা রকি হত্যা কান্ডের শিকার হয়েছেন বলে দাবী তুষার ও এলাকাবাসীর।দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় দাদন ও মাদক ব্যবসার পাশাপাশি সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালালেও কাঞ্চন বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে রকি হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতারের দাবী জানান জেলা ছাত্রলীগের শীর্ষ এই নেতা শহরের পূর্র্ব পাড়ার নবাব আলীর ছেলে কাঞ্চন এক সময় ইজি বাইকের টোল আদায় করলেও দাদন ব্যবসার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তোলে। রকি হত্যায় জড়িত কাঞ্চনের এই সন্ত্রাসী বাহিনীকে গ্রেফতার ও বিচারের দাবী গাইবান্ধা বাসীর।

 

আপনার মতামত লিখুন :